Monday , April 23 2018
Home / বাংলাদেশ / ফোর্বসের সেরা উদ্যোক্তার তালিকায় দুই বাংলাদেশি তরুণ

ফোর্বসের সেরা উদ্যোক্তার তালিকায় দুই বাংলাদেশি তরুণ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রভাবশালী সাময়িকী ফোর্বস চলতি বছরে এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা প্রকাশ করেছে। ওই তালিকায় এসেছে বাংলাদেশের দুই তরুণ উদ্যোক্তার নাম।

চলতি বছরে এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রভাবশালী ম্যাগাজিন ফোর্বস। আর এবারের তালিকায় উঠে এসেছে বাংলাদেশের দুই তরুণ উদ্যোক্তার নাম।

‘৩০ আন্ডার ৩০ এশিয়া ২০১৮ : দ্য সোস্যাল এনট্রপ্রেনারস ব্রিঙ্গিং পজিটিভ চেইঞ্জ টু এশিয়া’ শিরোনামে এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা সোমবার (২৬ মার্চ) প্রকাশ করেছে ফোর্বস।

ফোর্বসের এই তালিকায় ওঠে আসা বাংলাদেশি দুই তরুণ উদ্যোক্তা হলেন, অনলাইন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান টেন মিনিটস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক (২৬) ও পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত ‘চেঞ্জ’ নামের স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের প্রধান সাজিদ ইকবাল (২৭)।

পরিবেশ রক্ষায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্যে সাজিদ ইকবাল ২০১২ সালে চেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করেন। প্ল্যাস্টিকের বোতল ব্যবহার করে পরিবেশসম্মত বিকল্প জ্বালানির ব্যবস্থা করতে ওই সময় একটি প্রকল্প চালু করেন তিনি। ‘বোতলবাতি’ নামে তার এই প্রকল্প দ্রুত ব্যাপক সাড়া পায়।

দিনের বেলায় বস্তির অন্ধকার ঘরে সূর্যের আলো ব্যবহার করে তৈরি হয় এই বোতলবাতি। শুধু ঘরেই নয়, বড় বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানে পরিবেশসাশ্রয়ী বাতি পৌঁছে দিতে সোলার পাইপ লাইট নামের একটি প্রকল্প নিয়েও কাজ করে তার প্রতিষ্ঠান।

ফোর্বস বলছে, জার্মানির একটি সংস্থার সহায়তায় বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া অন্তত ৪ হাজার মানুষের ঘরে বোতলবাতির আলো পৌঁছে দিয়েছেন সাজিদ। তার এই প্রতিষ্ঠান সৌর লণ্ঠন, সড়ক বাতি, ক্ষুদে সেচ পাম্প প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছে।

এর আগে বাংলাদেশের এই তরুণ উদ্যোক্তা প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনূস পদক, মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর, ব্রিটিশ রানির কাছে থেকে কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস-২০১৭ লাভ করেন।

অন্যদিকে, শিক্ষামূলক সংগঠন হিসেবে ২০১৫ সালে ‘টেন মিনিট স্কুল’ প্রতিষ্ঠা করেন শিক্ষা উদ্যোক্তা আয়মান সাদিক। ওই সময় মোবাইল অপারেটর রবির সহায়তায় তিনি এই অনলাইন স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন। যার লক্ষ্য ছিল এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা; যেখান থেকে মানুষ শিক্ষা অর্জন করতে পারবে।

টেন মিনিটস স্কুল ইউটিউব এবং ফেসবুকে সংক্ষিপ্ত লেকচারসমৃদ্ধ ভিডিও প্রকাশ করে। বাংলায় ভিডিওচিত্র নির্মাণের পাশাপাশি অনলাইনে লাইভ ক্লাসও নিয়ে থাকে সাদিকের এই অনলাইন স্কুল।

ফোর্বস বলছে, আয়মান সাদিকের অনলাইন এ স্কুল শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে শত শত লাইভ ক্লাস, স্মার্ট বই, হাজার হাজার ভিডিও টিউটরিয়াল তৈরি করে। বর্তমানে দেড় লাখের বেশি শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছেছে সাদিকের এই স্কুল। সম্প্রতি টেন মিনিটস স্কুলকে সহায়তায় বাংলাদেশ সরকার এগিয়ে এসেছে।

ব্রিটিশ রানির কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস-২০১৮ লাভ করেছেন আয়মান সাদিক। এছাড়া এই স্কুলের জন্য এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় আইসিটি জোটের বেস্ট ই-লার্নিং অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন তিনি।

Check Also

আইল্যান্ড প্রকল্প বদলে দিতে পারে বাংলাদেশকে : জয় । কি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশে জেনে নিন!!

মহেশখালীতে ডিজিটাল দ্বীপ তৈরি হলে সেখানকার দরিদ্রতম মানুষের ভাগ্য বদলে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *