Friday , April 20 2018
Home / বিনোদন / বিছানাতে শহিদই সেরা, অকপটে স্বীকার মীরার

বিছানাতে শহিদই সেরা, অকপটে স্বীকার মীরার

তাঁদের ব্রেক-আপের পরে কারিনা কাপূরই আগে সংসার পাতেন সাইফ আলির সঙ্গে। ২০১৫ সালে, শহিদ কাপূরের বিয়ে হয় মীরা রাজপুতের সঙ্গে। শোনা যায়, বাবা পঙ্কজ কাপূরেরই পছন্দ করা পাত্রী ছিলেন দিল্লিবাসিনী মীরা।

চকোলেট বয় ইমেজ নিয়ে বলিউডে নিজের যাত্রা শুরু করলেও, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে পাল্টে ফেলতে কখনওই দ্বিধা করেননি শাহিদ কাপূর। হয়তো সে কারণেই ‘যব উই মেট’ (২০০৭), ‘হায়দার’ (২০১৪), ‘উড়তা পাঞ্জাব’ (২০১৬)-এর মতো ছবিতে তাঁর অভিনীত ভিন্ন চরিত্রগুলিই মনে দাগ কেটেছে দর্শকদের।
বলিউডের বেশির ভাগ তারকার মতোই, বিভিন্ন সময়ে শহিদ কাপূরেরও নাম জড়িয়েছে তাঁর সহ-অভিনেত্রীদের সঙ্গে। যার মধ্যে বহুল চর্চিত সম্পর্ক ছিল কারিনা কাপূরের সঙ্গে।

কিন্তু, তাঁদের ব্রেক-আপের পরে কারিনা কাপূরই আগে সংসার পাতেন সইফ আলির সঙ্গে। ২০১৫ সালে, শহিদ কাপূরের বিয়ে হয় মীরা রাজপুতের সঙ্গে। শোনা যায়, বাবা পঙ্কজ কাপূরেরই পছন্দ করা পাত্রী ছিলেন দিল্লিবাসিনী মীরা।

বলিউডের সঙ্গে কোনও যোগসূত্রইও ছিল না মীরার। কিন্তু, শহিদের সঙ্গে বিয়ের পরে, অনেক অনুষ্ঠানেই তাঁকে দেখা যায় স্বামীর সঙ্গে। টেলিভিশনের জনপ্রিয় টক-শো ‘কফি উইথ কর্ণ’-এও মীরাকে বেশ খোলামেলা কথা বলতে দেখা গিয়েছিল। যেমন, শহিদের প্রাক্তনদের ব্যাপারে তাঁর মতামত, তাঁদের ঝগড়া হলে কীভাবে মিটমাট হয় ইত্যাদি।

নিজেদের বেশ কিছু ব্যক্তিগত কথাও অনেক সময়েই অকপটে বলেন মীরা। সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি এমনই এক চ্যাট-শোয়ে বেশ কিছু প্রশ্নের ‘বোল্ড’ উত্তর দিতে শোনা যায় মীরাকে। তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ঘনিষ্ট মুহূর্তে তাঁদের ‘ফেবারিট পজিশন’ কী। সাহসী মীরার চটজলদি জবাব ছিল, বিছানায় শহিদ ‘কন্ট্রোল ফ্রিক’। সাদা বাংলায় যার মানে, প্রেমিকই নিয়ন্ত্রণ করেন সেই খেলা।

মীরার অকপট উত্তরে প্রশ্নকারীর অবস্থা যেমনই হোক না কেন, লজ্জায় মুখ লাল হয়ে গিয়েছিল তাঁর পাশে বসা শহিদের।

Check Also

যার সঙ্গে প্রেম করতেন ক্যাটরিনা!

মুকেশ আম্বানির ছেলে আকাশ আম্বানি নাকি এবার বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন। পাত্রী শ্লোক মেহতা নাকি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *