Friday , April 20 2018
Home / খেলাধুলা / ব্রেকিং খবরঃ হঠাৎ করেই বাংলাদেশের সূচি পরিবর্তন

ব্রেকিং খবরঃ হঠাৎ করেই বাংলাদেশের সূচি পরিবর্তন

হঠাৎ করেই বাংলাদেশের অনুশীলন সূচি পরিবর্তন। ভাগ্যিস বাংলাদেশ দলের লিয়াজোঁ কর্মকর্তাকে ফোনটা করা হয়েছিল! তিনি যখন জানালেন, দলের অনুশীলন প্রায় শেষ, আকাশ থেকে পড়তে হলো। শেষ মানে? বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শুরুই হওয়ার কথা বিকেল ৪টায়। এখন বাজে দুপুর ১২টা।

লিয়াজোঁ কর্মকর্তা হাতিম বললেন, ‘না, না সময় পরিবর্তন করা হয়েছে। অনুশীলন শুরু হয়েছে সকালে। দ্রুত চলে আসুন, ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলন দুপুর ১টায়।’ পড়িমরি করে ছুটতে হলো প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে। মাথার ওপর সূর্যটা রেখে বাংলাদেশের সাংবাদিক দল যখন মাঠে পৌঁছেছে , অনুশীলন শেষে তখন ধীর কদমে ড্রেসিংরুমে ফিরে যাচ্ছেন মুশফিকুর রহিম।

হঠাৎ হন্তদন্ত হয়ে বাংলাদেশের সাংবাদিকদের আগমনে কৌতূহলী দৃষ্টিতে তাকালেন মুশফিক। পরে নিজেই বললেন, ‘আমাদের অনুশীলন হওয়ার কথা ছিল বিকেলে।’ কিন্তু কেন হয়নি সেটিও ব্যাখ্যা করলেন, ‘বিকেলে অনুশীলন করলে সেন্টার উইকেটে নেট ব্যবহার করা যাবে না। সেন্টার উইকেটে নেট না করতে পারলে বিকেলে অনুশীলন করে লাভ নেই। আমাদের গতরাতেই জানানো হয়েছে বিষয়টা।’

তার মানে বাংলাদেশ দল বাধ্য হয়েছে অনুশীলনের সূচি বদলাতে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) কাছে ফ্লাডলাইটে অনুশীলনের সুবিধা চেয়েছিল বাংলাদেশ। এসএলসি প্রথমে দেওয়ার কথা বললেও পরে যে সুবিধাটা দেয়নি, সেটি তো বোঝাই যাচ্ছে।

কেন দেয়নি সেটির সুনির্দিষ্ট কারণ অবশ্য জানা নেই দলের সঙ্গে কলম্বোয় আসা নির্বাচক হাবিবুল বাশারের, ‘ফ্লাডলাইটে ব্যাটিং ও ফিল্ডিং করাটা দরকার ছিল। মাঝ উইকেটে যেহেতু নেট করা যাবে না, আমরা তাই সকালে এসেছি। এখানে মনে হয় না অন্য কিছু আছে।’

এক মাঠে যেহেতু টানা ম্যাচ, আয়োজকেরা হয়তো ম্যাচ বিরতিতে মাঝ উইকেট পূর্ণ বিশ্রামে রাখতে চেয়েছে। আর সফরকারী দল যে সুবিধা চাইবে, সবই যে স্বাগতিক বোর্ড দেবে, সেটিও নয়। শ্রীলঙ্কা দল যেমন গত জানুয়ারিতে বাংলাদেশে এসে গ্রানাইটের উইকেটে অনুশীলন করতে চেয়েছিল, বিসিবি সেটা দেয়নি।

একবার ম্যাচের আগের দিন দিনেশ চান্ডিমাল জানতে চেয়েছিলেন কোন উইকেটে খেলা হবে, সেটিও নাকি তাৎক্ষণিকভাবে তাঁকে জানানো হয়নি। এসএলসি যদি সেই মনস্তাত্ত্বিক খেলাটা এখন বাংলাদেশের সঙ্গে খেলে, এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

তবে প্রস্তুতিতে একটু খামতি থেকে গেল কি না সেটাই হচ্ছে প্রশ্ন। শ্রীলঙ্কায় এসে একদিনও ফ্লাডলাইটের আলোয় অনুশীলন করতে পারেনি বাংলাদেশ। অথচ খেলতে হবে রাতে।

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ অবশ্য আত্মবিশ্বাসী কণ্ঠে বললেন, প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি নেই, তাঁরা তৈরি হয়েই নামছেন, ‘গত কিছুদিনে আমরা ফ্লাডলাইটে অনেক খেলেছি। আমরা তো শ্রীলঙ্কান কন্ডিশন জানিই। অনেকটা আমাদের মতোই। মনে হয় না এতে কোনো সমস্যা হবে।’ সমস্যা না হলেই ভালো। বাংলাদেশের সামনে যে ব্যর্থতা ভুলে নতুন শুরুর তাড়া।

Check Also

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের নেতৃত্ব দেবেন সাকিব আল হাসান!

স্মিথ রাজস্থান রয়্যালসের নেতৃত্ব ছেড়ে দিলেও ডেভিড ওয়ার্নারের বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *